খুব সহজে ডিএনএ পৃথক করুন

ডিএনএ (DNA) হলো এক ধরনের ডাবল হেলিক্যাল নিউক্লিক এসিড (Nucleic Acid) যা কোন জীবের সকল কোষের নিউক্লিয়াসে অবস্থান করে। এটি বংশগতির ধারক ও বাহক, অর্থাৎ এটি প্রত্যেক জীবের সকল বৈশিষ্ট্য নির্ধারন করে এবং বংশ পরম্পরায় পিতা-মাতা থেকে সন্তান-সন্ততিতে প্রবাহিত হয়। ডিএনএ প্রকৃতিতে সার্বজনিন কারন এটি সব ধরনের উদ্ভিদ, প্রানী, ব্যাক্টেরিয়া, এমনকি ভাইরাসেও উপস্থিত। মানে যেখানেই জীবন সেখানেই ডিএনএর অস্তিত্ব। এখন যেহেতু এটি একটি জীবের সকল বৈশিষ্ট্য নিয়ন্ত্রন করে তাই বিভিন্ন গবেষনা বা অন্যান্য অনেক প্রয়োজনে এটা পৃথকীকরনের (Isolation) দরকার পড়ে কিন্তু ডিএনএ পৃথক করা এতো সহজ নয় কারন এটা খালি চোখে দেখা যায়না; উপরন্তু এটি পৃথক করার যন্ত্রগুলোর অনেক মুল্যবান তাই ইচ্ছে থাকলেও ডিএনএ পৃথক করা সম্ভব হয়না। তবে আমি আজ বলবো কিভাবে খুব সাধারন উপায়ে ডিএনএ পৃথক করা যায় (যদিও এটা গবেষনা করার উপযুক্ত নয় মোটেই)। যাহোক, এক্ষেত্রে ডিএনএর সোর্স হিসাবে আমাদের মুখের ভিতরের কোষকে ব্যবহার করবো।

প্রয়োজনীয় উপকরন

ঘাবড়ানোর কোন দরকার নাই, এখানে খুব সাধারন কিছু জিনিস ব্যবহার করা হয়েছে যা আপনার হাতের নাগালেই পাবেন। এজন্য নিচের অত্যান্ত মুল্যবান জিনিস গুলো লাগবেঃ

  • একটা পরিষ্কার গ্লাস
  • খাওয়ার লবন (রান্নাঘরেই পাবেন)
  • থালা-বাসন পরিষ্কার করা তরল ডিটারজেন্ট
  • লেবুর রস (কাগজি বা পাতি লেবু হলেই হবে)
  • এলকোহল (ইথানল)
  • বেশ কিছুটা থুথু (আপনার মুখেই আছে)
উপরোক্ত অতি মুল্যবান জিনিসগুলো দিয়েই আজ ডিএনএর গুষ্টি উদ্ধার করা সম্ভব, এবং এখন সেটাই দেখবো।
কিভাবে কি করতে হবে!
আসলে মুখের লালা থেকে ডিএনএ আলাদা করা খুব সহজ ব্যাপার কিন্তু কিছু জিনিস মাথায় রাখতে হবে। প্রথমত, মুখের লালাতে সাধারনত ডিএনএ থাকেনা, এতে যে ডিএনএ পাওয়া যায় তাহলো মুখের ভিতরের কোষের ডিএনএ যা লালার সাথে মিশে যায়। এখন পুরো ব্যাপারটি করার জন্য নিচের কাজ গুলো ধাপে ধাপে করতে হবেঃ
  1. প্রথমে, মুখ বন্ধ করে ভেতরে জিহবা নাড়াচাড়া করতে হবে, মাঝে মাঝে জোর দিয়ে মুখের ভিতরে মাংশে জিভ ঘষাঘষি করতে হবে যাতে কোষ গুলো লালাতে মিশে যায়।
  2. এরপর, একটা গ্লাসে থুথু সংগ্রহ করতে হবে, এটা ৩-৫ বার রিপিট করতে হবে যাতে পর্যাপ্ত পরিমান থুথু পাওয়া যায় (গ্লাসের চার ভাগের এক ভাগ হলেই চলবে)।
  3. এখন গ্লাসের থুথুতে অল্প পরিমান লবন মিশাতে হবে, এবং পুরোপুরি না মেশা পর্যন্ত নাড়াচাড়া করতে হবে।
  4. এরপর, ১-২ ফোটা ওয়াশিং ডিটারজেন্ট এতে মিশাতে হবে, এবং খুব ভালোভাবে মিশাতে হবে।
  5. এরপর আবার ১ ফোটা লেবুর রস গ্লাসে যোগ করতে হবে এবং ভালোভাবে মিশাতে হবে।
  6. লেবুর রস ভালোভাবে মিশে গেলে, এতে আবার ১ ফোটা ইথানল যোগ করতে হবে এবং ভালোভাবে মিশাতে হবে।
  7. একদম শেষে, গ্লাসের মধ্যকার এই সলুশনের উপরিভাগে এক ধরনের সাদাটে তরল পদার্থ দেখা যাবে, এটাই আমাদের কাংখিত ডিএনএ।
অনেক মজার তাইনা! অন্তত আমার কাছে তো সেরকমই মনে হয় যদিও আসল মেকানিজম কিন্তু খুব সহজ। এখন আমরা জানবো, এটা আসলে কিভাবে কাজ করে।
ডিএনএ পৃথকীকরণের পেছনে আসল ঘটনা
আসলে এর পেছনে কোন ম্যাজিক নাই বরং আছে নিখাদ বিজ্ঞান। আমরা জানি মুখের লালাতে গালের ভেতরের কোষ থাকে যাদের নিউক্লিয়াসে ডিএনএ থাকে। এখন ডিএনএ বের করে আনতে গেলে আমাদের কোষ এবং নিউক্লিয়াস দুটোই ভেঙ্গে ফেলতে হবে। এই ভেঙ্গে ফেলার কাজটি করে ডিটারজেন্ট (Detergent), এবং এটি কোষঝিল্লী ও নিউক্লিয়ার ঝিল্লীর ফ্যাটি এসিড ভেঙ্গে করে। এখন ডিএনএ তো কোষের বাইরে চলে আসলো, খুব ভালো কথা কিন্তু এর সাথে বিভিন্ন এনজাইম, প্রোটিন গুলাও বের হয়ে আসে – এগুলা কোষের ভেতর মুলত আলাদা থাকে। এখন শুধু ডিএনএ পেতে গেলে আমাদের এইসব প্রোটিন ও এনজাইম গুলাও আলাদা করতে হবে। এখন ডিএনএ কে আলাদা রাখার জন্য দেওয়া হলো লেবুর রস যা ডিএনএর সাথে বন্ধন তৈরি করবে অথবা প্রটিনের সাথে বন্ধন সৃষ্টি করবে। আর লবন ডিএনএ বা প্রোটিনকে একসাথে জোর বাধতে বাধা দেয় এবং এলকোহল ডিএনএ কে কোষের সব অঙ্গানু থেকে আলাদা রাখে কারন কোষের ডিএনএ ছাড়া আর সবকিছুই এলকোহলে দ্রবীভুত হয়ে যায়।
অল্পকিছু কথা
এক্ষেত্রে সোর্সে যদি ডিএনএ বেশি পরিমান থাকে তাইলে ডিএনএ পাওয়া অনেক সহজ হয়। কিছু ফলের প্লইডি লেভেল (Ploidy Level) বেশি থাকার কারনে তাতে ডিএনএর পরিমান অনেক বেশি থাকে ফলে ডিএনএ পৃথকীকরন অনেক সহজ হয়। যেমন, স্ট্রবেরির প্লয়ডি লেভেল আটটা (8n) যেখানে মানুষের প্লয়ডি লেভেল দুইটা (2n) এবং এ কারনেই মানুষের গালের কোষ থেকে প্রাপ্ত ডিএনএ অনেক কম পরিমানে পাওয়া যায়। উপরের প্রক্রিয়ায় লেবু না পেলে আনারসের রস দিয়েও করা সভব।
তথ্যসুত্রঃ


ইন্টারনেট থেকে অনুপ্রাণিত এবং পরিবর্তিত
Advertisements

2 thoughts on “খুব সহজে ডিএনএ পৃথক করুন

মন্তব্য করুন...

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s