‪‎এনআইবি স্মৃতিকাব্য ও কৃতজ্ঞতা স্বীকার‬!

মজার সময়গুলো বড্ড ক্ষণস্থায়ী হয়! ‪আইনস্টাইনের‬ ভুত (আপেক্ষিকতা) তখন আমাদের মনে ভর করে। কঠিন সময়গুলো যায় খুব ধীরে আর মজার সময়গুলো চোখের পলকে। ঠিক তেমনি বুঝার আগেই যেন শেষ হয়ে গেলো ‪এনআইবির (NIBNational Institute of Biotechnology)‬ চমৎকার দিনগুলো। ওখানে গেছিলাম ‪জৈবপ্রযুক্তির‬ বেসিক ট্রেনিং করতে কিন্তু আমার মনে হয় ওটা একটা প্রতিযোগিতা ছিল, মজা করার প্রতিযোগিতা। সবাই মিলে অনেক মজা করেছি। ট্রেনিং শেষে বাসায় ফিরে খুব মিস করছি সবাইকে, বিশেষ করে ইন্ডিয়াবাসী দুধখোর ‪বিট্টু‬ ওরফে সাদিকুর ভাইয়ের মজার মজার কৌতুক, ‪সুমন‬ দার বিবাহিত জীবনের অভিজ্ঞতায় ফাপা মেদভুড়ির নাটকীয়তা ও প্রশ্নবিদ্ধ ল্যাব সেশন, হ্যান্ডসাম ফিলো ‪‎রাশেদ‬ ভাইয়ের ভাব গাম্ভীর্য, ঝাঁকড়া চুলের ‪‎শোভন‬ ভাইয়ের লাজুক হাসি, ‪‎ওয়াটসন‬ জুনিয়রের (DNA আবিষ্কারক ওয়াটসনের অরিজিনাল বংশধর) ভেসলিন মাখা চুলের সুচারু সিথি, ওয়াটসন সহপাঠী ‪ক্রিকের‬ হঠাৎ উধাও হওয়া, হিরো ‪যুবায়ের‬ ভাইয়ের প্রোফাইল ফটো মিশন (মিশন ইম্পসিবল!), ‪রাজু‬ ভাইয়ের ফ্রেসলুকের রহস্য উন্মোচন পর্ব, ‪‎দিলরুবা‬ আপুর বিবাহিত-অবিবাহিত জীবনে করনীয় ও বর্জনীয় উপদেশ মালা (বাস্তব অভিজ্ঞতার আলোকে), ‪‎পিয়া‬ ম্যাডামের চশমার উপর দিয়ে নজরদারী, বান্ধবী ‪সেলিনার‬ নির্লিপ্ততা, ‪শিমির‬ উচ্চতার গ্রাভিটি, জুনিয়র ‪‎রাকিবের‬ দুষ্টামি এবং বন্ধু ‪‎আকাশের‬ সিস্টেমবাজী খুব বেশি মিস করছি।

ওখানে যাওয়ার জন্য অনেক কাটখড় পুড়াতে হয়েছিল আমাকে তবে গিয়ে বুঝেছি, কস্ট বৃথা যায়নি। ওখানে গিয়ে অনেক কিছু শিখেছি, জেনেছি, বুঝেছি। ওখানের প্রশিক্ষক ও সহকারীরা কতটা আন্তরিক ছিলেন তা ভাষায় প্রকাশ সম্ভব নয়। গাধা পিটিয়ে মানুষ বানানোর গল্প পড়েছিলাম ছোটবেলায়; ইনারা মিস্টি কথায় ভুলিয়ে ‪বাদরদের‬ গবেষণা শিখান। এটা সত্যিই অভাবনীয়। খাওয়া দাওয়ার কথা আর নাইবা বললাম! গেলেই বুঝবেন। তবে মজাটা আসলে নিজেরাই করতে হয় এবং আমরা সেটা করেছি। সত্যি বলতে, মজার ঘটনাগুলো এখনো আমার পিছু ছাড়েনি – স্মৃতিসৌধে প্রহরীর তাড়া খাওয়ার মাঝেও সেল্ফি প্রোজেক্টের দৌরাত্ম্য, ডিনার শেষে চাদের আলোয় ঘুরে বেড়ানো, চা-পান-সিগারেট পার্টি, রাতে ছাদে আড্ডাসহ বিমানের আলো বিষয়ক গবেষণা ও বিশ্লেষণ, দুপুরে গুইসাপের চোখা দৃষ্টি, সন্ধ্যায় সাপের দর্শন আর রাতদুপুরে মৌমাছির কামড় এখনো আমাকে  আচ্ছন্ন করে রেখেছে (উপরলার অশেষ দয়ার দুটি কামড় খাওয়ার সৌভাগ্য শুধু আমিই অর্জন করেছিলাম)। সবকিছুই অত্যন্ত উপভোগ্য। এরকম একটা ট্রেনিং এ অংশগ্রহন করতে পেরে আমি গর্বিত।

লেখাটা বড্ড বড় হয়ে গেল! কাওকে ছোট করার বা এনআইবিকে (NIB) বড় বা ছোট করার উদ্দেশ্যে লিখিনি। আসলে সবাইকে উৎসাহী করার উদ্দেশ্যে লিখেছি। এই বেলায় এনআইবির প্রতি কৃতজ্ঞতা স্বীকার করছি এরকম একটা সুন্দর ট্রেনিং কোর্সের আয়োজন করার জন্য। অশেষ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি সকল প্রশিক্ষকদের প্রতি যারা নিজেদের কাজ ফেলে অসীম ধৈয্যের সাথে আমাদের পথটা হাতে কলমে একটু এগিয়ে দেওয়ার জন্য, এবং ল্যাবের সহকারীদের প্রতিও জানাই ধন্যবাদ তারা রেডিমেড কিটসের মত সবকাজ এগিয়ে রাখার জন্য। সবশেষে আমরা যারা একসাথে ট্রেনিং করেছিলাম তাদের সবার প্রতি ভালোবাসা রইল ক্ষুদ্র জীবনের এই মুল্যবান সময়টুকু মধুর করার জন্য। ও হ্যা, বিগত কয়েকদিন অনেককে ‪‎ট্যাগাইছি‬ (ট্যাগ করেছি), এটা অনেক সময় বেশ বিরক্তিকর – ‪ক্ষমা‬ চাইছি। যে যেখানে আছেন – সবাই ভালো থাকুন, ভালো কিছু করুন – এই কামনা করি।

Advertisements

মন্তব্য করুন...

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s