Viral Evasive Strategies: dodging the immune system

Charles Darwin described evolution by his famous statement “struggle for the existence”. Nature always like predator-prey play. Our body evolved a complex network of immune system to combat with different kind of external organism and substances like virus. Viruses also have a place in nature and also meant to survive. Therefore, they also developed different evasive strategies to dodge the immune system. Today we will know how virus avoid immune attack after entering into our body. Continue reading

পৃথিবীতে পানি কোথা থেকে এলো?

পৃথিবী পৃষ্ঠের প্রায় ৭০ ভাগ পানি দ্বারা বেষ্টিত। পৃথিবীর মোট পানির ৯৭% দ্বারা সমুদ্র গঠিত আর বাকি ৩% দ্বারা নদী, ভূগর্ভস্থ পানি, গ্লেসিয়ার, অন্যান্য সব গঠিত। এই পানি কখনো তরল, কখনো বরফ আবার কখনো বাষ্প হয়েছে আবার সময়কালে বৃষ্টি হয়ে ভূপৃষ্ঠে ঝরে পড়েছে। এভাবে পৃথিবীতে পানির পরিমান সবসময় একই থেকেছে। পানি জীবনের একটা অপরিহার্য উপাদান। পৃথিবী পানিশুন্য হলে হয়তো জীবনের উৎপত্তি সম্ভব হতোনা। কিন্তু জীবনের সমতূল্য এই উপাদানটি সম্পর্কে আমরা কতটুকুই বা জানি! পানি সম্পর্কে সবথেকে প্রথম ও গুরুত্বপুর্ণ প্রশ্নের উত্তরটাইতো এখনো আমরা সঠিকভাবে জানিনা, যে পৃথিবীতে পানি কোথা থেকে এলো? Continue reading

নক্ষত্রের বর্জ্যেই প্রাণের পত্তন

হাজার বছর ধরে মানুষ রাতের ঝলমলে আকাশ দেখে বিস্মিত হয়েছে আর মুগ্ধ নয়নে ভেবেছে বহুদুরের ঝুলন্ত আলোক বিন্দু নিয়ে। আকাশের বুকে জ্বলজ্বলে এই ঝুলন্ত বিন্দুই হলো তারা বা নক্ষত্র। তখনকার দিনে নক্ষত্র মানুষের মনে ঐশ্বরিক চিন্তার যোগান দিত, নক্ষত্রদের মাধ্যমে নাবিকরা সমুদ্রে দিক ঠিক করতো। যদিও নক্ষত্র কি, কিভাবে এদের উৎপত্তি – এসব সম্পর্কে তাদের কোন ধারনা ছিলনা। বিজ্ঞানের প্রগতির ফলে আজ নক্ষত্রদের সম্পর্কে জানার তেমন কিছু বাকি নাই। মজার বিষয় হলো, নক্ষত্ররা নিষ্প্রাণ হলেও যেন অনেকটা জীবিত; এদের জন্ম হয় এবং জীবন শেষে মৃত্যুবরন করে। Continue reading

এক অপরাজেয় ক্ষুদে সৈনিকের গল্প

বর্তমান বিশ্বে সবথেকে মারাত্মক রোগের নাম এইডস (AIDS)। এইডস একপ্রকার ভাইরাস ঘটিত রোগ এবং এইচআইভি (Human Immunodeficiency Virus) নামক এক প্রকার ভাইরাসের কারনে এই রোগটি হয়। এই ভাইরাসটি এতই ধুরন্ধর যে এখনো পর্যন্ত পৃথিবীর কোন বিজ্ঞানীই একে বাগে আনতে পারেনি। কিন্তু এর পেছনে কারণ কি! এর পেছনে সবথেকে বড় ফ্যাক্টর হল বিবর্তন (Evolution)। আসলে বিবর্তন আমাদের মত বড়সড় প্রাণীদের চোখের আড়ালে অতি ধীর গতিতে ঘটলেও, অণুজীব, বিশেষ করে ভাইরাসদের জগতে এটা হর-হামেশাই ঘটে থাকে। দিজ ইজ নট এ বিগ ডিল টু দেম!
Continue reading

সবুজ টিকটিকির রহস্যময় জীবন!

ক্যারোলিনা এনোল (Carolina anole) নামের এই টিকটিকি জাতীয় ছোট্ট প্রাণীটা আমার খুব পছন্দের। এর বৈজ্ঞানিক নাম এনোলিস ক্যারোলিনেন্সিস (Anolis carolinensis)। এদেরকে আমেরিকান ক্যামেলিয়ন (American Chameleon) বা সবুজ টিকটিকিও (Green Anole) বলা হয়। এরা দেখতে ভারি চমৎকার, অনেকটা আমাদের দেশের গিরগিটির মত তবে রঙটা সবুজ এবং গোলাপী। এরা মুলত খুবই শান্তশিষ্ট, রোমান্টিক আর সামাজিক প্রাণী। যেসব দেশে এদের পাওয়া যায়, অনেকেই এদের পোষা প্রাণী হিসাবে পালন করেন। বিবর্তনের দিক দিয়ে দেখলে এরা আমাদের খুব কাছের প্রানী। Continue reading

কোষীয় বিবর্তনে এন্ডোসিম্বায়োসিস

কোষ জীবদেহের একটা অপরিহার্য উপাদান এবং জীবদেহ গঠনের ক্ষুদ্রতম একক। বর্তমান পৃথিবীর সকল জীবই এক প্রকার কোষ থেকে বিবর্তন (Evolution) প্রক্রিয়ায় আজকের অবস্থায় এসে পৌঁছেছে। এজন্য পৃথিবীর সকল প্রাণী বা উদ্ভিদ কোষ দ্বারা গঠিত। যদিও উদ্ভিদ বা প্রাণীর ক্ষেত্রে এই কোষের প্রকৃতি ভিন্ন আবার এককোষী এবং বহুকোষী প্রাণীদের ক্ষেত্রেও কোষের গঠন ভিন্ন। তাহলে এখানে প্রশ্ন থাকে যে যদি এক ধরনের কোষ থেকেই পৃথিবীর সকল জীবের উদ্ভব হয় তাহলে জীবের ধরনভেদে কোষের এই ভিন্নতা কেন! Continue reading