আমার অভিজিৎ রায় ভাবনা

অভিজিৎ রায়ের সাথে আমার কোন স্মৃতি নেই। ব্যাক্তিগত স্মৃতি থাকার আবশ্যকতা হয়তো ততটা ছিলনা কিন্তু আবশ্যকতা ছিল তার ভাবনার জগতের ভাগ পাওয়া। আমি গর্বিত কারণ আমি সেটা পেয়েছি। অন্য মুক্তমনাদের কাছে এটা কতটা গুরুত্বপুর্ন জানিনা তবে এটা আমার বড় পাওয়া। আমার চিন্তাধারায় সবথেকে বেশি প্রভাব ফেলেছে আরজ আলী মাতুব্বর এবং অভিজিৎ রায়। আমার সমসাময়িক সময়ে অভিজিৎ রায়কে পাওয়া তাই অনেক বড় কিছু। তবে দেখা হওয়ার আগেই তিনি এভাবে চলে যাবেন ভাবতে পারিনি। Continue reading

Advertisements

প্রকাশক হত্যা এবং আমার অবেলা!

দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে বাংলাস্তান সৃষ্টির আয়োজন।  ব্লগার হত্যার ধারা বজায় রেখে এবার নতুন এক ধারার জন্ম দিতে কুপিয়ে জখম ও হত্যা করা হলো মুক্তধারার বইয়ের প্রকাশককে। গত ৩১ অক্টোবর, শুদ্ধস্বরের অফিসে হামলা করে প্রকাশক আহমেদুর রশীদ চৌধুরী টুটুল, তারেক রহিম এবং রণদীপম বসু – এই তিন জনকে গুরুতর জখম করা হয়। এর ঠিক কয়েক ঘন্টা পরেই জাগৃত প্রকাশনীর ফয়সাল আরেফিন দীপন কে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এদের চারজনের মধ্যে রণদীপম বসুর লেখার সাথে আমি পরিচিত। এই প্রকাশকদের অপরাধ তারা অভিজিৎ রায়ের বই প্রকাশ করেছিল। কি অদ্ভুত দেশ আমাদের! Continue reading

ব্লগাররা আমার কে হয়!

ব্লগাররা তোর কে হয়, তাদের নিয়ে তোর এতো মাথাব্যাথা কেন!? অভিজিৎ দার মৃত্যুর পর থেকে এপর্যন্ত ব্লগারদের স্বপক্ষে লেখার জন্য অনেকের সাথে বহুবার তর্কে-বিতর্কে জড়িয়ে পড়তে হয়েছে, ফলে নিকট মানুষদের কাছ থেকেই এই প্রশ্নটার মুখোমুখি হয়েছি। ভেবে পাইনা কি বলবো! ব্লগারদের অধিকাংশের সাথে আমার সরাসরি পরিচয় নেই সত্য, বেশিরভাগই পরিচিত লেখার মধ্য দিয়ে। সুতরাং তথাকথিত সম্পর্কের প্রশ্নটা এখানে অবান্তর কিন্তু সম্পর্ক অনেক রকম হয় (রক্তের, শরীরের, আত্মার), তাই কিছু না কিছুতো আছেই। লেখার মধ্যদিয়ে একজন ব্যক্তির চিন্তা-চেতনা-আদর্শের প্রতিফলন ঘটে। এজন্য এসব মানুষদের সাথে আমার আদর্শিক সম্পর্ক, ভালবাসা, ভালোলাগার সম্পর্ক। সবথেকে বড় সম্পর্ক এরা সবাই মানুষ, কেউ মহামানব নয়। Continue reading

বাংলাদেশে জঙ্গি উত্থান, নির্লিপ্ত সরকার

সাম্প্রতিক বাংলাদেশে বিদেশী নাগরিকদের হত্যাযজ্ঞ শুরু হয়েছে। কিছুদিন আগেই অস্ট্রেলিয়া বিদেশী নাগরিকদের উপর জঙ্গি হামলার সন্দেহবশত খেলা বাতিল করে দিল। আর ঠিক দুদিন পরেই ঢাকায় হাই সিকুরিটি এলাকায় ইতালির নাগরিক ট্যাভেলা খুন হন। ইতালির ট্যাভেলার পর রংপুরে গতকাল দিনে দুপুরে খুন হলো জাপানি নাগরিক হোসি কোমিও। খুনের প্যাটার্ন একই – মোটর বাইক, পিস্তল/রিভল্বার, তিনটি বুলেট। দুইটা খুনেই আইএস দায় স্বীকার করেছে (যদিও নির্ভরযোগ্যতা প্রশ্নবিদ্ধ!) ঠিক যেমন ব্লগার হত্যার সময় আন্সারুল্লাহ দায় স্বীকার করেছিল। Continue reading

অসি-মসীর শক্তি পরিক্ষা ও নক্ষত্রের অপমৃত্যু!

বাংলায় একটা বহুল ব্যবহারিত প্রবাদ হলো, “অসির চেয়ে মশীর শক্তি বেশি“। এটা পাল্টিয়ে “মশীর চেয়ে অসির শক্তি বেশি” করার সময়টা বোধহয় এসে গেছে নাহলে একটা উজ্জ্বল নক্ষত্র মানুষরূপী কিছু জানোয়ারের চাপাতির আঘাতে এভাবে খশে পড়তোনা। সেই নক্ষত্রটি হল আমাদের অভিজিৎ রায়, পেশায় সফটওয়ার প্রকৌশলি, বিজ্ঞান লেখক ও জাহানারা ইমাম পুরস্কার প্রাপ্ত বাংলা ব্লগ মুক্তমনার প্রতিষ্ঠাতা। অভিজিৎ রায় কে কাল রাতে বইমেলা থেকে ফেরার পথে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তিনি ছিলেন বাংলা ব্লগিং জগতের অন্যতম পথিকৃৎ এবং সকল বাংলা ব্লগারদের কাছে বড় দাদার মত। Continue reading

মডার্ণ এইপের ফেইসবুকের পাতা থেকে

মিথ্যা ও ভুলে ভরা এক করোটির কথা

আমরা এ কোন দিকে চলেছি! আমরা কুসংস্কারের কাছে আমৃত্যু ধর্ষিত হতে রাজি কিন্তু যুক্তির কাছে হারতে রাজি নই! অথচ মানুষ আপাদমস্তক একটি লজিকাল প্রানি এবং যুক্তির কাছে হেরেই আজ আমরা আদিম অনিশ্চিত গুহাবাসী অসভ্য জীবন ছেড়ে মানুষ হয়েছি। এমনকি এই অনন্ত মহাবিশ্বে নিজেদের অস্তিত্বের জানান দিচ্ছি কিন্তু পরিপুর্ন মানুষ কি হতে পেরেছি আজো? Continue reading

সাম্প্রতিক বাংলাদেশ ও মানসিক অভ্যস্ততা!

২০১৫ সালটা বড়ই বিষাদময়, এমন যদি হত যে ২০১৪ সালের পরে ২০১৬ সাল শুরু হতো! তাহলে হয়তো ইতিহাস একটা বড়সড় কলঙ্ক থেকে বেঁচে যেত। এই বছরটা এখনো অর্ধেক পেরোয়নি তাতেই আমরা হারিয়েছি ফেলেছি অনেক কিছু, জানিনা এই বাংলাস্থানে আর কতকিছু হারাতে হবে। এ বছরের প্রথম এবং বড় ধাক্কাটা খেয়েছিলাম ফেব্রুয়ারিতে অভিজিৎ দাদার মৃত্যুতে। এরপর থেকে ঘটনা চলমান, এফবিআই এলো দেশে আশায় বুক বাধলাম যে কিছু একটা হবেই। বিচারতো ধুর ছাই শেষে ইজ্জত নিয়ে টানাটানি। এদেশে জীবনের থেকে বিশ্বাসের মূল্য অনেক বেশি তাইতো কারো মৃত্যুর পর সবকিছু রেখে আগে দেখা হয় তার বিশ্বাস ছিল কিনা! Continue reading